ঢাকা ০৮:১০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শেখ হাসিনার ৪৪তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হাতিয়ার এমপি মোহাম্মদ আলীর ছেলে আশিক আলি অমি, অন্যরাও সরে দাঁড়ালেন না। জেলা আওয়ামিলীগের সংবাদ সম্মেলন সার্বজনীন পহেলা বৈশাখ বা পয়েলা বৈশাখ – লেখকঃ  আসসাদুজ্জামান আরমান  (প্রকাশক ও সম্পাদক) মুরগির ওজন বৃদ্ধির জন্য খাওয়ানো হচ্ছে ইটের কণা ডিজিটাল মিটারের অফলাইন এবং অনলাইন সেবাতে বিভ্রান্ত গ্রাহক নোয়াখালীতে মোটরসাইকেল চোর চক্রের ০২ সদস্য গ্রেফতার সহ ০৭ টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উৎযাপন স্বাধীনতা দিবসে বীর শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন নোয়াখালী পৌরসভায় কিশোরগ্যাং এর উৎপাত বাড়ছে নোয়াখালীর সদর উপজেলায় অগ্নিকাণ্ডে এক ব্যক্তি নিহত ও একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ

নোয়াখালী-০৪ ‘একরামুল করিম চৌধুরীকে ঘিরেই সকল জল্পনা কল্পনা’

News Desk
  • আপডেট সময় : ০৭:১৩:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০২৩ ১৮৮ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি:   আগামী ০৭ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালীর-০৪ আসনের জন্য সবার থেকে এগিয়ে আছেন বর্তমান সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথম “সংসদ সদস্য” নির্বাচিত হন তিনি। এই আসন থেকে পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে হেট্রিক করেন। জেলার রাজনীতিতে এবং সংসদ সদস্য হিসেবে এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর কার্যক্রম সর্ব মহলে প্রশংসিত। যার ফলস্রুতিতে দল এবং সাধারণ জনগন মনে করেন যে, এ আসনে তিনি যতদিন নৌকার মাঝি থাকবেন ততদিন আওয়ামী লীগের বিজয় সুনিশ্চিত।

মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি রুখতে, আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনে একরামুল করিম চৌধুরীর বিকল্প নেই। সরেজমিন ঘুরে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানা যায়।

স্থানীয়রা জানান, একরামুল করিম চৌধুরী গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। মটর সাইকেল নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে ভোট চাওয়া, নেতা-কর্মদের সুখে-দুখ্যে সবার আগে ছুটে যাওয়া, মাদক-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি ও ইভটিজিং রুখতে এমপি একরামের কার্যক্রম সর্ব মহলে প্রশংসার দাবী রাখে। দলকে সুসংগঠিত করে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি প্রতিনিয়তই ছুটে বেড়ান বিভিন্ন এলাকায়। উন্নয়ন ও দলের স্বার্থে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একরামুল করিম চৌধুরীই একমাত্র যোগ্য প্রার্থী বলে মনে করে তৃণমূলের সাধারণ মানুষ।

পরপর তিনবার সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি এ আসনে টানা ১৫ বছরে নোয়াখালী-৪ আসনের রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎ, স্কুল-কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর একজন সৈনিক হিসেবে শেখ হাসিনার সততা ও আদর্শকে বুকে লালন করে এলাকার সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখে জনসাধারণে সেবা করে যাচ্ছেন।

বিএনপি-জামাতের অবরোধের বিরুদ্ধে অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিলে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের সাথে এমপি একরাম।

শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিথুন ভট্ট বলেন, একরামুল করিম চৌধুরীর যোগ্য নেতৃত্বে নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগ বিগত সময়ের চেয়ে আজ অত্যন্ত সুসংগঠিত। আগামী নির্বাচনে তার বিকল্প নেই।

নোয়াখালী পৌরসভার ০১ নং ওয়ার্ড এর বাসীন্দা ও মাইজদী বাজারের ব্যবসায়ী আবুল হাসান জানান, সন্ত্রাস- চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স পোষন করেন এমপি একরামুল করিম চৌধুরী। শান্তির শহর প্রতিষ্ঠায় তিনিই একমাত্র যোগ্য প্রার্থী।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

নোয়াখালী-০৪ ‘একরামুল করিম চৌধুরীকে ঘিরেই সকল জল্পনা কল্পনা’

আপডেট সময় : ০৭:১৩:০০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০২৩

বিশেষ প্রতিনিধি:   আগামী ০৭ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালীর-০৪ আসনের জন্য সবার থেকে এগিয়ে আছেন বর্তমান সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রথম “সংসদ সদস্য” নির্বাচিত হন তিনি। এই আসন থেকে পরপর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে হেট্রিক করেন। জেলার রাজনীতিতে এবং সংসদ সদস্য হিসেবে এমপি একরামুল করিম চৌধুরীর কার্যক্রম সর্ব মহলে প্রশংসিত। যার ফলস্রুতিতে দল এবং সাধারণ জনগন মনে করেন যে, এ আসনে তিনি যতদিন নৌকার মাঝি থাকবেন ততদিন আওয়ামী লীগের বিজয় সুনিশ্চিত।

মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি রুখতে, আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনে একরামুল করিম চৌধুরীর বিকল্প নেই। সরেজমিন ঘুরে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানা যায়।

স্থানীয়রা জানান, একরামুল করিম চৌধুরী গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। মটর সাইকেল নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে ভোট চাওয়া, নেতা-কর্মদের সুখে-দুখ্যে সবার আগে ছুটে যাওয়া, মাদক-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি ও ইভটিজিং রুখতে এমপি একরামের কার্যক্রম সর্ব মহলে প্রশংসার দাবী রাখে। দলকে সুসংগঠিত করে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি প্রতিনিয়তই ছুটে বেড়ান বিভিন্ন এলাকায়। উন্নয়ন ও দলের স্বার্থে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একরামুল করিম চৌধুরীই একমাত্র যোগ্য প্রার্থী বলে মনে করে তৃণমূলের সাধারণ মানুষ।

পরপর তিনবার সংসদ সদস্য হিসেবে তিনি এ আসনে টানা ১৫ বছরে নোয়াখালী-৪ আসনের রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎ, স্কুল-কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর একজন সৈনিক হিসেবে শেখ হাসিনার সততা ও আদর্শকে বুকে লালন করে এলাকার সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রেখে জনসাধারণে সেবা করে যাচ্ছেন।

বিএনপি-জামাতের অবরোধের বিরুদ্ধে অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিলে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের সাথে এমপি একরাম।

শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিথুন ভট্ট বলেন, একরামুল করিম চৌধুরীর যোগ্য নেতৃত্বে নোয়াখালীতে আওয়ামী লীগ বিগত সময়ের চেয়ে আজ অত্যন্ত সুসংগঠিত। আগামী নির্বাচনে তার বিকল্প নেই।

নোয়াখালী পৌরসভার ০১ নং ওয়ার্ড এর বাসীন্দা ও মাইজদী বাজারের ব্যবসায়ী আবুল হাসান জানান, সন্ত্রাস- চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স পোষন করেন এমপি একরামুল করিম চৌধুরী। শান্তির শহর প্রতিষ্ঠায় তিনিই একমাত্র যোগ্য প্রার্থী।