ঢাকা ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শেখ হাসিনার ৪৪তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হাতিয়ার এমপি মোহাম্মদ আলীর ছেলে আশিক আলি অমি, অন্যরাও সরে দাঁড়ালেন না। জেলা আওয়ামিলীগের সংবাদ সম্মেলন সার্বজনীন পহেলা বৈশাখ বা পয়েলা বৈশাখ – লেখকঃ  আসসাদুজ্জামান আরমান  (প্রকাশক ও সম্পাদক) মুরগির ওজন বৃদ্ধির জন্য খাওয়ানো হচ্ছে ইটের কণা ডিজিটাল মিটারের অফলাইন এবং অনলাইন সেবাতে বিভ্রান্ত গ্রাহক নোয়াখালীতে মোটরসাইকেল চোর চক্রের ০২ সদস্য গ্রেফতার সহ ০৭ টি চোরাই মোটর সাইকেল উদ্ধার নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উৎযাপন স্বাধীনতা দিবসে বীর শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন নোয়াখালী পৌরসভায় কিশোরগ্যাং এর উৎপাত বাড়ছে নোয়াখালীর সদর উপজেলায় অগ্নিকাণ্ডে এক ব্যক্তি নিহত ও একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ

গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

News Desk
  • আপডেট সময় : ০৬:০৮:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ২৩০ বার পড়া হয়েছে

৯ সেপ্টেম্বর (শনিবার) ভারতের জি-২০ সম্মেলনের মঞ্চে গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সের উন্মোচন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ অন্যান্য শীর্ষ নেতাদের সাথে গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সে অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে আলাপচারিতা হয় শেখ হাসিনার। এ সময় শেখ হাসিনার সঙ্গে সেলফি তোলেন জো বাইডেন।দুই নেতার সাক্ষাতের সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এবং যুক্তরাষ্ট্রর পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন।আলাপচারিতায় দুই নেতাকে হাস্যজ্জ্বল দেখা যায়। এক পর্যায়ে শেখ হাসিনা এবং সায়মা ওয়াজেদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে সেলফি তোলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সম্মেলনের প্রথম পর্বের আলোচনায় ‘ওয়ান আর্থ’-এ অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পারস্পরিক সহযোগিতাই কেবল মানবসভ্যতা ও পৃথিবীকে রক্ষা করতে পারে। মানবতার সুরক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন রোধ ও দারিদ্র দূরীকরণ প্রভৃতি বিষয়ে গুরুত্ব দেন শেখ হাসিনা।তিনি আরো বলেন,আমাদের এমন একটি বিশ্ব ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে যার মধ্যদিয়ে দারিদ্র্য নিরসন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব রোধ ও সংঘাত মোকাবিলা করার পথ সুগম হবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন – ওয়ান আর্থ বা ‘এক বিশ্ব’ সেশনের সময় পেট্রোলের সঙ্গে ইথানল যোগের ব্যবহার বাড়াতে বলেন তিনি। ‘গ্রিন ক্রেডিট’ উদ্যোগেও তিনি জোর দেন । পরে সন্ধ্যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসেন হাসিনা-মোদি।দেশের অভ্যন্তরীণ নানা বিষয়ে তাদের মধ্যে কথপোকথন হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আপডেট সময় : ০৬:০৮:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

৯ সেপ্টেম্বর (শনিবার) ভারতের জি-২০ সম্মেলনের মঞ্চে গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সের উন্মোচন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনসহ অন্যান্য শীর্ষ নেতাদের সাথে গ্লোবাল বায়োফুয়েলস অ্যালায়েন্সে অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে আলাপচারিতা হয় শেখ হাসিনার। এ সময় শেখ হাসিনার সঙ্গে সেলফি তোলেন জো বাইডেন।দুই নেতার সাক্ষাতের সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এবং যুক্তরাষ্ট্রর পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন।আলাপচারিতায় দুই নেতাকে হাস্যজ্জ্বল দেখা যায়। এক পর্যায়ে শেখ হাসিনা এবং সায়মা ওয়াজেদের সঙ্গে মোবাইল ফোনে সেলফি তোলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সম্মেলনের প্রথম পর্বের আলোচনায় ‘ওয়ান আর্থ’-এ অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পারস্পরিক সহযোগিতাই কেবল মানবসভ্যতা ও পৃথিবীকে রক্ষা করতে পারে। মানবতার সুরক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন রোধ ও দারিদ্র দূরীকরণ প্রভৃতি বিষয়ে গুরুত্ব দেন শেখ হাসিনা।তিনি আরো বলেন,আমাদের এমন একটি বিশ্ব ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে যার মধ্যদিয়ে দারিদ্র্য নিরসন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব রোধ ও সংঘাত মোকাবিলা করার পথ সুগম হবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন – ওয়ান আর্থ বা ‘এক বিশ্ব’ সেশনের সময় পেট্রোলের সঙ্গে ইথানল যোগের ব্যবহার বাড়াতে বলেন তিনি। ‘গ্রিন ক্রেডিট’ উদ্যোগেও তিনি জোর দেন । পরে সন্ধ্যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসেন হাসিনা-মোদি।দেশের অভ্যন্তরীণ নানা বিষয়ে তাদের মধ্যে কথপোকথন হয়।